শিরোনাম
কোটা ব্যবস্থার সংস্কারের পাশাপাশি রাষ্ট্রের সংস্কারের দাবি ছাত্র ইউনিয়নের ‘‘স্থায়িত্বশীল নগরায়ন: সমস্যা ও সমাধান’’ বিষয়ক বাপা’র পুস্তিকা উম্মোচন ৬-৮ জুন ছাত্র ইউনিয়নের ৪২তম জাতীয় সম্মেলন ফার্মগেটের আনোয়ারা উদ্যান ফিরিয়ে দিতে ৩০ দিনের আল্টিমেটাম কর্মসংস্থানবান্ধব বাজেটের দাবিতে যুব ইউনিয়ন এর সেমিনার সিপিবি’র “বাজেট : গণমানুষের ভাবনা” শীর্ষক আলোচনা সভা জাতীয় ন্যূনতম মজুরি ঘোষণা, রেশন ব্যবস্থা ও ন্যায্যমূল্যের দোকান চালুর দাবি শ্রমিক শ্রেণীর অধিকার আদায় ও শোষণ মুক্তির সংগ্রাম বেগবান করুন তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে বাপা’র ৮ দফা দাবী ১লা মে কিভাবে শ্রমিক দিবস হলো?

ঢাকায় গাইবেন কবীর সুমন

ঢাকায় গাইবেন কবীর সুমন

১৩ বছর পর বাংলাদেশে গাইতে আসছেন ভারতীয় সংগীতশিল্পী কবীর সুমন। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে ১৫ অক্টোবর আধুনিক বাংলা গান, ১৮ অক্টোবর বাংলা খেয়াল এবং ২১ অক্টোবর আধুনিক বাংলা গান পরিবেশন করবেন তিনি।
‘তোমাকে চাই-এর ৩০ বছর উদ্‌যাপন’ শিরোনামে শোটির আয়োজন করেছে পিপহোল। আয়োজকেরা বলছেন, টিকিট বিক্রির ঘোষণার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ১৫ ও ২১ অক্টোবরের সব টিকিট শেষ হয়ে গেছে, ১৮ অক্টোবরের টিকিটও প্রায় শেষের পথে।

পরিস্থিতি বিবেচনায় কিছু স্ট্যান্ডিং টিকিটের ব্যবস্থা করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন আয়োজকেরা; তবে তা এখনই নিশ্চিত নয়। অনুষ্ঠানে সরাসরি উপস্থিত না হলেও অনলাইনে দেশ ও দেশের বাইরে থেকে অনুষ্ঠানটি উপভোগ করার সুযোগ আছে। সেটার জন্যও আলাদা টিকিট সংগ্রহ করতে হবে।

১৯৯২ সালে ‘তোমাকে চাই’ নামের একটি গানের অ্যালবাম করে জনপ্রিয়তার শীর্ষে চলে আসেন কবীর সুমন। জীবনমুখী বাংলা গানের প্রবর্তক হিসেবে তাঁকেই গ্রহণ করে বাঙালি। গ্রহণ করেছেন দুই বাংলার শ্রোতারা। সেই থেকে অব্যাহত তাঁর সংগীতের চলার পথ। একসময় স্থানীয় রাজনীতিতে সক্রিয় হন নিজের মতো করে। নন্দীগ্রাম আর সিঙ্গুর আন্দোলনে দাঁড়িয়েছিলেন মমতার পাশে।
তারপর যাদবপুর কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের টিকিটে সংসদ সদস্য হন। কিন্তু বনিবনা না হওয়ায় পরে তৃণমূল ছাড়েন। তাঁর জন্ম ভারতের ওডিশায়, ১৯৪৯ সালের ১৬ মার্চ।